বুধবার, ১৬ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং। ৩রা মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। বিকাল ৫:৪১








প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

গাছে মোবাইল না বাঁধলে, ‘যোগাযোগ’ই করা যায়না যেখানে!

আধুনিক যুগে এসেও বিশ্বে এখনও অনেক দেশ তলানিতেই রয়ে গেছে। সাম্প্রতি  ঘানার একটি গ্রামের ঘটনা, সেখানে কেবল ফোন করার জন্য একটি গাছের কাছে বা গাছের সাথে ফোন বাঁধলেই কল করা যায়। এছাড়া নেটওয়ার্ক পাওয়াই যায়না।

শুনতে অদ্ভুত শোনাতে পারে। কিন্তু, ওই গ্রামের বাসিন্দাদের এখন সেই গাছকেই বেছে নিতে হয়েছে যোগাযোগ করার জন্য।তাদের মোবাইল যোগাযোগের মাধ্যম গ্রামের মাঝে থাকা একটি উচুঁ গাছ।

গ্রামের বাসিন্দা ৪০ বছরের আবুবকর আল হাসান বলেন, মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্কের সিগন্যাল পাওয়া এখানে খুবই কঠিন। এখানকার সব মানুষই সিগন্যালের সমস্যায় ভোগে।

বিশেষ করে যখন আপনি এখন কোন বন্ধু বা পছন্দের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন, তখন সেটা খুবই কঠিন হয়ে পড়ে। এমনকি যখন কোন অন্তঃসত্ত্বা নারী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তখন অ্যাম্বুলেন্স পেতেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয় না।

এই নেটওয়ার্ক সমস্যার একটি অভিনব সমাধান খুঁজে বের করেছেন গ্রামবাসীরা। গ্রামের মাঝখানে অবস্থিত একটি বিশাল গাছ তাদের যোগাযোগের পথ খুলে দিয়েছে।

দূর থেকে দেখে গাছটি সাধারণ একটি গাছ বলে মনে হবে। কিন্তু যোগাযোগের জন্য এই গাছটিই তাদের একমাত্র ভরসা। সেখানে দেখা যায়, গাছটির নিচে দাঁড়িয়ে অন্তত বিশজন ব্যক্তি ফোন করছেন বা কথা বলছেন।

তাদের অনেকে গাছের ডালের সঙ্গে তাদের ফোন বেঁধে রেখেছেন, আবার কেউ কেউ গাছের মগডালে উঠে গেছেন। এই গাছটি এখানকার মানুষের মোবাইল যোগাযোগের প্রধান কেন্দ্র।

দুপুর তিনটার দিকে মোবাইল নেটওয়ার্ক খোঁজার এই কর্মকাণ্ড শুরু হয়, যেখানে সময় এবং ধৈর্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর তাই সব গ্রামবাসীর কাছেই এই ম্যাজিক মোবাইল গাছ অনেক কিছু।

গ্রামের এক বাসিন্দা বলেন, এই গাছটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পুরো গ্রামটি এর ওপর নির্ভরশীল। কারণ এটাই একমাত্র জায়গা, যেখানে আমরা মোবাইল সিগন্যাল খুঁজে পাই।

যেখান থেকে আমরা ফোনকল করতে পারি। তাই আমরা গাছটিরও অনেক যত্ন নেই। এই গাছটি যদি পড়ে যায়, পুরো গ্রাম বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে।

আরও পড়ুন... গুণীজনের ১০০ বাণী , যা আপনার জীবনকে বদলে দিতে পারে