শনিবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং। ৭ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ। সকাল ১০:৫১








প্রচ্ছদ » সম্পাদকীয়/কলাম

পদ্মায় ডুবছে বিএনপি!

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বলেছেন, পদ্মাসেতুর স্বপ্ন দেখাচ্ছে সরকার। কিন্তু পদ্মাসেতু আওয়ামী লীগের আমলে হবে না। এ সেতু জোড়া তালি দিয়ে বানানো হচ্ছে। এ সেতুতে কেউ উঠবেন না।

গত মঙ্গলবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের হলরুমে ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন...

এই বক্তব্য দেয়ার পর চারিদিকে সমালোচনার ঝড় বইছে। অনেকেই তার মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি দুই বারের প্রধানমন্ত্রী, অথচ তার কথাবার্তায় নেই কোন সামঞ্জস্যতা। সমালোচনা করার অধিকার সবারই আছে কিন্তু সবকিছুরই একটা সীমা থাকা উচিত।
যেই সেতু দিয়ে তিনি মানুষকে পারাপার হতে না করেছেন সেই সেতু দিয়ে তিনি নিজেই যাবেন এমন মন্তব্য করেছেন অনেকে।

অনেকেই তার এই বক্তব্য থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। তার দলের নেতা কর্মীরাও এই বক্তব্যকে ভালোভাবে নেননি।

পদ্মা সেতু স্বপ্নের সেতু, এ সেতু নিয়ে মানুষের আগ্রহের কোন শেষ নেই। বিশেষ করে দক্ষিণ বঙ্গের মানুষ যারা প্রতিনিয়ত ঝুকি নিয়ে ঢাকা আসা যাওয়া করেন, তাদের জন্য এই সেতুটি যেন সোনার হরিণ।

পদ্মা সেতুতে কোন দুর্নীতি হলে তার সমালোচনা করতে পারেন। কিন্তু কোন উন্নয়নের সমালোচনা করতে পারেন না।

তিনি ভুলে গেলে চলবে না, তিনি একসময় এই দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, আবার তিনি ভবিষ্যতে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন।

তাকে অবশ্যই ভেবে চিনতে কথা বলতে হবে। যা মুখে আসে তাই বললে চলবে না।

অনেকেই বলছেন পদ্মা সেতু নিয়ে তার মন্তব্যে সাধারণ মানুষের মাঝে নেগেটিভ ধারনা তৈরি হবে, যাতে ভাবমূর্তি রক্ষা কঠিন হয়ে পরবে।

এভাবেই দুর্নীতি ,মামলা নিয়ে বিপদে আছেন তিনি। রায়ে কী হবে সেটা নিয়েও চলছে চুলছেড়া বিশ্লেষণ। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে যদি খালেদা জিয়া জেলে যান তাহলে ভেঙ্গে চূর্ণ বিচূর্ণ হয়ে যেতে পারে তার দল।

উল্লেখ্য এর আগে পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে অর্থায়ন থেকে সরে যায় বিশ্ব ব্যাংক, কিন্তু পরবর্তীতে কানাডার আদালতে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমানে ব্যর্থ হয় বিশ্ব ব্যাংক।  আর এ নিয়ে বিএনপির নানা সমালোচনা ও মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

আজ মন্ত্রীসভায় খালেদা জিয়ার বেফাঁস মন্তব্যের ব্যাপারেএকজন মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিতে আনলে তিনি বলেছেন, ওনি (খালেদা জিয়া) সব কিছু বুঝেন না, কিন্তু না বুঝে যা খুশি বলে দেন।’

একজন মন্ত্রী জানান, পদ্মাসেতু নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের বক্তব্যটি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনেন একজন মন্ত্রী মঙ্গলবার খালেদা জিয়া বলেছিলেন, জোড়াতালি দিয়ে পদ্মাসেতু বানানো হচ্ছে। এই সেতুতে ঝুঁকি আছে। কেউ যেন এতে না উঠে।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় এই প্রসঙ্গটি তোলেন একজন মন্ত্রী। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘উনি (খালেদা) এসব কিছু বোঝেন না। না বুঝে যখন যা খুশি তাই বলেন। তিনি যেটুকু বুঝেছেন সেটুকু বলেছেন। তাই তার এ বক্তব্যের ব্যাপারে আমি আর কী বলব?’।

পদ্মাসেতু স্বপ্ন নয়, দৃশ্যমান বাস্তবতা এমন মন্তব্য করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী মো. ওবায়দুল কাদের বলেন, পায়রা বন্দর ও সমুদ্র বন্দরের মতো মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন তো দূরের কথা খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকার সময় এমন প্রকল্প গ্রহণের সাহসও করেনি।

এখন পদ্মাসেতুর মতো মেগা প্রকল্পগুলো দেখে বিএনপির গাত্রদাহ হচ্ছে। তাই তারা পদ্মা সেতু নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। পদ্মা সেতু নির্মাণের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পেরেছেন, আর এটাই খালেদা জিয়ার অন্তরজ্বালা। পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ যথাসময়ে সম্পন্ন হবে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা তখন দেখবো বিএনপির নেত্রীসহ নেতাকর্মীরা পদ্মা সেতু দিয়ে যায় কিনা।

পদ্মা সেতু নিয়ে খালেদার বক্তব্যে পাঠকের প্রতিক্রিয়াঃ

বিঃদ্রঃ পাঠকের মন্তব্য একান্তই পাঠকের, মোড়ল নিউজ এর জন্য দায়বদ্ধ নয়। 

যা আছে পদ্মাসেতুতে?
১. পদ্মা সেতুর প্রকল্পের নাম ‘পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প’।
২. পদ্মা সেতুর ধরণ দ্বিতলবিশিষ্ট। এই সেতু কংক্রিট আর স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে।
৩. পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট ব্যয় (মূল সেতুতে) ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।
৪. ২০১৭-১৮ অর্থবছর পদ্মাসেতু প্রকল্পে সরকারের বরাদ্দ ৫২৪ কোটি টাকা।
৫. পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদীশাসন ব্যয় ৮ হাজার ৭০৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা।
৬. পদ্মা সেতু প্রকল্পে চুক্তিবদ্ধ কোম্পানির নাম চায়না রেলওয়ে গ্রুপ লিমিটেড।
৭. পদ্মা সেতুতে থাকবে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও অপটিক্যাল ফাইবার সংযোগ পরিবহন সুবিধা।
৮. পদ্মা সেতুতে রেললাইন স্থাপন হবে নিচ তলায়।
৯. পদ্মা সেতুর প্রস্থ হবে ৭২ ফুট, এতে থাকবে চার লেনের সড়ক।
১০. পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার।
১১. পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট ৩ দশমিক ১৮ কিলোমিটর।
১২. পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়ক দুই প্রান্তে (জাজিরা ও মাওয়া) ১৪ কিলোমিটার।
১৩. পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদীশাসন হয়েছে দুই পাড়ে ১২ কিলোমিটার।
১৪. পদ্মা সেতু প্রকল্পে কাজ করছে প্রায় চার হাজার মানুষ।
১৫. পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট পিলার ৮১টি।
১৬. পানির স্তর থেকে পদ্মা সেতুর উচ্চতা হবে ৬০ ফুট।
১৭. পদ্মা সেতুর পাইলিং গভীরতা ৩৮৩ ফুট।
১৮. পদ্মা সেতুর মোট পিলারের সংখ্যা ৪২টি।
১৮. প্রতি পিলারের জন্য পাইলিং হবে ৬টি।
১৯. পদ্মা সেতুর মোট পাইলিংয়ের সংখ্যা ২৬৪টি।
২১. পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হবে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে।

 

নাহিদকে ঘিরে এসব কি ঘটতে যাচ্ছে?
সব হারিয়ে গেছে, টিকে আছে শুধু মুখোশটাই!
শেখ হাসিনাকে মনে রাখবে তো এই শিক্ষকেরা?


সর্বশেষ সংবাদ

এক ওভারে ৩৭ রান!

দেশের বাইরে গেলে যে ১১ টি বস্তু অবশ্যই থাকে রাণী এলিজাবেথের সাথে!

কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত

কওমি ও আলিয়া মাদ্রাসায় আসলে কী শিখছে শিক্ষার্থীরা জেনে নিন

এক নজরে দেখেনিন বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বোচ্চ স্কোরগুলো

আজ ২০/০১/২০১৮ তারিখ দেখে নিন আজকের টাকার রেট!

এবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা নীতিতে পরিবর্তন

অাইভীর শরীরের কন্ডিশন কী জানা যাবে অাজ

নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় বিশ্বে প্রথম হলো বাংলাদেশ!

তৈমুরের কাছে মেয়েকে রাখতে ভয় পান সোহা আলি খান!

দিনে করেন শিক্ষকতা, রাতে গাড়ি জ্বালিয়ে দেন যে অধ্যাপক! জানুন বিস্তারিত….

প্রতি ঘণ্টায় মাদকের ১১টি করে মামলা হয় !

বাদ পড়ছেন বিতর্কিত শতাধিক এমপি জেনে নিন তারা কে কে

পপ তারকা শাকিরার উত্থান পতনের গল্প,যা আপনাকে অনুপ্রাণিত করবে

যুক্তরাষ্ট্রের গোপন বৈঠক, উত্তর কোরিয়ায় হামলার প্রস্তুতি!

নড়াইলে প্রতিপক্ষের হামলায় ১৪ জন গুলিবিদ্ধ

‘আমরা এখনো একসঙ্গে আছি’

আরব আমিরাতে কাতারের যুবরাজের আত্মহত্যার চেষ্টা

বিশ্বের শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকা প্রকাশ, দেখে নিন বাংলাদেশের অবস্থান কত?

পাইলটের বুকের পাটার জোরে বেঁচে ৭২ জনের প্রাণ (দেখুন Ilve ভিডিও)





error: Content is protected !!
Copy to clipboard