শনিবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং। ৭ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ। সকাল ১১:০৬








প্রচ্ছদ » আইন ও আদালত

আলোচিত মাসদার হোসেন মামলা থেকে ড. কামাল ও আমীরকে প্রত্যাহার!

আলোচিত মাসদার হোসেন মামলা পরিচালনা থেকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. কামাল হোসেন ও ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলামকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বুধবার এক বিবৃতিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন অধস্তন আদালতের বিচারকদের সংগঠন বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন...

জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ এসএম কুদ্দুস জামান ও মহাসচিব (ভারপ্রাপ্ত) আইন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (প্রশাসন) বিকাশ কুমার সাহা এই বিবৃতি দেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, দেশের শীর্ষ ছয়জন আইনজীবী মাসদার হোসেন মামলাকে রাজনীতিকরণের অপচেষ্টায় লিপ্ত আছেন। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. কামাল হোসেন, ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন, অ্যাডভোকেট এএফ হাসান আরিফ, ব্যারিস্টার ফিদা এম কামালসহ ছয়জন আইনজীবী অধস্তন আদালতের বিচারকদের জন্য প্রণীত শৃংখলা ও আপিল বিধিমালা-২০১৭ সম্পর্কে যেসব মন্তব্য করেছেন তা অ্যাসোসিয়েশনের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, স্বাধীনতা অর্জনের ৪৭ বছর অতিবাহিত হলেও সংবিধানের ১১৬ অনুচ্ছেদের আলোকে বিধিমালা প্রণয়ন না করেই অধস্তন আদালতের বিচারকদের শৃংখলাসংক্রান্ত বিষয়টি ১৯৮৫ সালের সরকারি কর্মচারীদের জন্য প্রণীত শৃংখলা ও আপিল বিধিমালা অনুসরণ করে নিষ্পত্তি করা হচ্ছিল।

এ ছাড়া ড. কামাল হোসেন, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন ও অ্যাডভোকেট এএফ হাসান আরিফ আইন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী/উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্বপালন করলেও তারা ওই সময় বিচারকদের জন্য পৃথক কোনো শৃংখলা ও আপিল বিধিমালা প্রণয়নের কোনো উদ্যোগ বা পদক্ষেপ নেননি।

যেহেতু সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ শৃংখলা ও আপিল বিধিমালাকে গ্রহণ করেছেন এবং অধস্তন আদালতের বিচারকদের মধ্যে এই বিধিমালার বিষয়ে কোনোরূপ অসন্তোষ নেই, সেহেতু বিবৃতিদানকারী আইনজীবীদের ওই বিষয় নিয়ে নেতিবাচক সমালোচনা না করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আপিল শুনানিকালে ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম অধস্তন আদালতের বিচারকদের স্বার্থবিরোধী বক্তব্য আপিল বিভাগে উপস্থাপন করায় এবং তার উক্ত বক্তব্য আদালত কর্তৃক গ্রহণযোগ্য না হওয়ায় বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। একই সঙ্গে ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম ও ড. কামাল হোসেনকে মাসদার হোসেন মামলা পরিচালনার ক্ষমতা (ওকালতনামা) প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

যেহেতু অধস্তন আদালতের বিচারকদের শৃংখলা বিধিমালাটি রাষ্ট্রপতি অনুমোদন দিয়েছেন এবং সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ গ্রহণ করেছেন, তাই বিধিমালার বিষয়ে সবাইকে অনুরূপ নেতিবাচক মন্তব্য বা বিবৃতি প্রদান না করার জন্য অনুরোধ করা হয় ওই বিবৃতিতে।

অ্যাটর্নি জেনারেলকে আবারও হত্যার হুমকি
যে কারণে 4G ইন্টারনেট সংক্রান্ত বিটিআরসি’র বিজ্ঞপ্তি স্থগিত করে দিল হাইকোর্ট
ঢাকা উত্তরে উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট আবেদন


সর্বশেষ সংবাদ

ঢাবি সিনেটে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন চলছে

হামলা চালাতে রাশিয়ার অনুমতি চেয়েছে তুরস্ক : আমেরিকার হুঁশিয়ারি

ইংলিশ চ্যানেলে তৈরী হবে ব্রিজ!

‘১৫ দিনের মধ্যে খালেদাকে কারাগারে যেতে হবে’-মশিউর রহমান রাঙ্গা

ভোররাতে যশোরে ‘গোলাগুলিতে’ নিহত ৪

এক ওভারে ৩৭ রান!

দেশের বাইরে গেলে যে ১১ টি বস্তু অবশ্যই থাকে রাণী এলিজাবেথের সাথে!

কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত

কওমি ও আলিয়া মাদ্রাসায় আসলে কী শিখছে শিক্ষার্থীরা জেনে নিন

এক নজরে দেখেনিন বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বোচ্চ স্কোরগুলো

আজ ২০/০১/২০১৮ তারিখ দেখে নিন আজকের টাকার রেট!

এবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা নীতিতে পরিবর্তন

অাইভীর শরীরের কন্ডিশন কী জানা যাবে অাজ

নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় বিশ্বে প্রথম হলো বাংলাদেশ!

তৈমুরের কাছে মেয়েকে রাখতে ভয় পান সোহা আলি খান!

দিনে করেন শিক্ষকতা, রাতে গাড়ি জ্বালিয়ে দেন যে অধ্যাপক! জানুন বিস্তারিত….

প্রতি ঘণ্টায় মাদকের ১১টি করে মামলা হয় !

বাদ পড়ছেন বিতর্কিত শতাধিক এমপি জেনে নিন তারা কে কে

পপ তারকা শাকিরার উত্থান পতনের গল্প,যা আপনাকে অনুপ্রাণিত করবে

যুক্তরাষ্ট্রের গোপন বৈঠক, উত্তর কোরিয়ায় হামলার প্রস্তুতি!





error: Content is protected !!
Copy to clipboard