শনিবার, ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং। ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। বিকাল ৩:৫৩








প্রচ্ছদ » ইসলাম ও জীবন

যেভাবে অাদায় করবেন লাইলাতুল কদরের নামাজ

চলছে মাহে রমজান মাস।সিয়াম সাধনার মাস   মুসলিম উম্মার জন্য এ মাস ইবাদতের শ্রেষ্ঠ  মাস ।এ রমচান মাসের ফযিলত অনেক । কারন এ মাসের মধ্যে রয়েছে পবিত্র লাইলাতুল কদর।

আজ ১২ জুন মহা মহিমান্বিত রজনী-পবিত্র লাইলাতুল কদর। লাইলাতুল কদর আরবী শব্দ যার অর্থ হলো বরকতময়, সম্মানিত বা মহামান্বিত রাত। ফারসি ভাষায় একে শবে কদর বলা হয়। মুসলিম উম্মাহের কাছে শবে কদর অত্যন্ত মহিমান্বিত ও বরকতময় একটি রাত। আজকের রাতটি ২৭ রমজানের রাত হিসেবে চিহ্নিত।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন...

লাইলাতুল কদর গোটা মানবজাতির জন্য অত্যন্ত পুণ্যময় রজনী। এ রাত্রি বিশ্ববাসীর জন্য আল্লাহর অশেষ রহমত, বরকত ও ক্ষমা লাভের অপার সুযোগ এনে দেয়। এ রাত হচ্ছে মহান আল্লাহর কাছে সুখ, শান্তি, ক্ষমা ও কল্যাণ প্রার্থনার এক অপূর্ব সুযোগ। এ রাতে অবতীর্ণ মানবজাতির পথপ্রদর্শক ও মুক্তির সনদ পবিত্র কোরআনের অনুপম শিক্ষাই ইসলামের অনুসারীদের সার্বিক কল্যাণ ও উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি, ইহকালীন শান্তি ও পারলৌকিক মুক্তির পথ দেখায়।

রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসের শেষ ১০ দিন ইতিকাফ করতেন এবং বলতেন, ‘তোমরা রমজানের শেষ ১০ রাতে শবে কদর সন্ধান করো।’ (বুখারি ও মুসলিম) তিনি আরও বলেছেন, ‘মাহে রমজানের শেষ দশকের বিজোড় রাতগুলোতে তোমরা শবে কদর সন্ধান করো।’ (বুখারি)

হাদিস শরিফে বর্ণিত আছে, ‘যে ব্যক্তি ইমানের সঙ্গে ও সওয়াব হাসিলের উদ্দেশ্যে কদরের রাতে দণ্ডায়মান হয়, তার অতীতের সব গুনাহ মাফ করে দেওয়া হবে।’ (বুখারি ও মুসলিম)

সুতরাং এ রাতে তারাবি-তাহাজ্জুদসহ অধিক নফল নামাজ, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, আল্লাহর জিকির, একাগ্রচিত্তে দোয়া এবং অতীত পাপমোচনে বিনীতভাবে ক্ষমা প্রার্থনার জন্য পরিবার-পরিজনকে উদ্বুদ্ধ করা উচিত। ইবাদতের মাধ্যমে রাত্রি জাগরণই মুমিন মুসলমানের প্রধান কাজ।

রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘সিজদায় বান্দা তার প্রভুর অধিক নিকটবর্তী হয়ে থাকে। তাই তোমরা অধিক দোয়া করো।’ (মুসলিম)

হজরত আয়েশা (রা.) একদা রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘হে রাসুলুল্লাহ! আমি যদি লাইলাতুল কদর পাই তখন কী করব? তিনি বললেন: তুমি বলবে, ‘আল্লাহুম্মা ইন্নাকা আফুব্বুন, তুহিব্বুল আফ্ওয়া ফা’ফু আন্নি’—অর্থাৎ হে আল্লাহ্! নিশ্চয়ই আপনি ক্ষমাশীল, আপনি ক্ষমা করে দিতে ভালোবাসেন, অতএব, আমাকে ক্ষমা করুন।’ (তিরমিজি)

একদিন নবী করিম (সা.) বনী ইসরাইলের শামউন নামক একজন আবিদ-জাহিদের দীর্ঘকালের কঠোর সাধনা সম্পর্কে বলছিলেন। সেই মহৎ ব্যক্তি এক হাজার মাস লাগাতার দিবাভাগে সিয়াম ও জিহাদে রত থাকতেন এবং সারা রাত জেগে থেকে আল্লাহর ইবাদতের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করতেন। উপস্থিত সাহাবায়ে কিরাম আল্লাহর এ নেক বান্দার কঠোর সাধনার কথা শুনে বলতে লাগলেন, ‘হায়! আমরাও যদি ওই লোকটির মতো দীর্ঘায়ু পেতাম, তাহলে আমরাও ওই রকম ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে দিবস-রজনী অতিবাহিত করতে পারতাম।’ এমন সময় সূরা ‘আল-কদর’ নাজিল হয়।

ইরশাদ হয়েছে, ‘নিশ্চয়ই আমি তা (কোরআন) অবতীর্ণ করেছি কদরের রাতে। আর কদরের রাত সম্বন্ধে তুমি কি জানো? কদরের রাত সহস্র মাস অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ। সে রাতে ফেরেশতাগণ ও রুহ অবতীর্ণ হয় প্রত্যেক কাজে তাদের প্রতিপালকের অনুমতিক্রমে। শান্তিই শান্তি, বিরাজ করে উষার আবির্ভাব পর্যন্ত।’ (সূরা আল-কদর, আয়াত: ১-৫)

লাইলাতুল কদর সম্পর্কে রাসুলে পাক (সা.) এরশাদ করেন, যে ব্যক্তি এ রাত ইবাদতের মাধ্যমে অতিবাহিত করবে, আল্লাহ তাঁর পূর্বেকৃত সব গুনাহখাতা মাফ করে দেবেন। (বুখারি) এ রাতে কল্যাণ থেকে একমাত্র হতভাগ্য লোক ছাড়া আর কেউ বঞ্চিত হয় না (ইবনে মাজাহ-মিশকাত)।

শবে কদরের নামাজ:
ন্যূনতম ১২ রাকাত থেকে যত সম্ভব পড়া যেতে পারে। এ জন্য সাধারণ সুন্নতের নিয়মে দুই রাকাত নফল নামাজের নিয়তে নামাজ শুরু করে শেষ করতে হবে। এ জন্য সূরা ফাতেহার সাথে যেকোনো সূরা মিলাইলেই চলবে। এ ছাড়া সালাতুল তওবা, সালাতুল হাজত, সালাতুল তাসবিহ নামাজও পড়তে পারেন। রাতের শেষভাগে কমপক্ষে আট রাকাত তাহাজ্জুদ পড়ার চেষ্টা করা। কারণ এ নামাজ সর্বশ্রেষ্ঠ নফল নামাজ। আর রাতের এ অংশে দোয়া কবুল হয়।

জিকির ও দোয়া:
হাদিসে যে দোয়া ও জিকিরের অধিক ফজিলতের কথা বলা হয়েছে সেগুলো থেকে কয়েকটি নির্বাচিত করে অর্থ বুঝে বার বার পড়া যেতে পারে। ইস্তেগফার (মা প্রার্থনা) ও দরুদ আল্লাহর কাছে খুবই প্রিয়। কমপক্ষে ১০০ বার ইস্তেগফার ও ১০০ বার দরুদ পড়া।

আমরা কায়েমনোবাক্যে আল্লাহর দারবারে মুনাজাত করব, মাফ চাইব, রহমত চাইব, জাহান্নাম থেকে মুক্তি চাইব। মনের আবেগ নিয়ে চাইব। চোখের পানি ফেলে চাইব।

উপরোক্ত আমলের মাধ্যমে আমরা এ পবিত্র রাতগুলো কাটাতে পারি। লাইলাতুল কদর পাবার আশা নিয়ে নিষ্ঠার সাথে অনুসন্ধান করলে আল্লাহ আমাদের বঞ্চিত করবেন না ইনশাআল্লাহ। আমরা এ রাতে বেশি বেশি নফল নাজ পড়ার চেষ্টা করবো ।জিকিরে সবসময় মশগুল থাকবো।



সর্বশেষ সংবাদ

কুড়িগ্রাম সীমান্তে বাংলাদেশীর মরদেহ উদ্ধার

প্রিয় শিক্ষকের বদলি ঠেকাতে শিক্ষার্থীদের একি কান্ড !

জাল পরচা তৈরী করে কোটি টাকার জমি রেজিষ্ট্রি

কেবল গায়ের রঙ কালো বলায় খাবারে বিষ, অতঃপর যা হল চার শিশুর…

চুয়াডাঙ্গায় মাদকব্যবাসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে, কঠিন সমীকরণের সামনে ব্রাজিলের

কার্ডের কারনেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় হতে পারে আর্জেন্টিনা

অক্টোবরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল: ইসি সচিব

নেইমারের ভক্ত হিসেবে নিজে ও ছেলেকে পরিচয় করালেন অপু

‘বাবা আমাকে রোজ রাতে ধর্ষণ করে’

কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৬

তল্লাশির নামে স্বামীকে সরিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করল পুলিশ!

রাজধানীর দক্ষিণখানে মাদকবিরোধী অভিযান চলছে

আমি না চাইলে জীবনেও পাসপোর্ট পাবেন না, হাই কমিশন কর্মকর্তার দম্ভোক্তি!

গোল করার পর যে কারণে কেঁদেছিল নেইমার!

ট্রাম্প আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছেঃ ইরান

শিশুকে বলাৎকারের সময় হাতেনাতে আটক

‘আ:লীগ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায় না,অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হতে হবে : শেখ হাসিনা

বাবা যখন বিশ্বকাপ দেখায় ব্যস্ত, তখন মা-মেয়েকে হত্যা

‘মসজিদ আমাদের ব্যারাক, গম্বুজ আমাদের হেলমেট, ঈমানদাররা আমাদের সৈনিক।’





error: Content is protected !!
Copy to clipboard