বৃহস্পতিবার, ১৯শে জুলাই, ২০১৮ ইং। ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। দুপুর ১:৫৮








প্রচ্ছদ » ইসলাম ও জীবন

মানুষ যে যে কারণে শয়তানের সহচর হয়

শয়তান সবসময় মানুষকে সত্যের পথ থেকে দূরে সরিয়ে দিয়ে ভূল ও ভ্রান্ত পথে নিয়ে যায় । মানুষকে অন্যায় কাজে উৎসাহিত করতে  সহযোগিতা করে থাকে।নানান কৌশলে সৎ মানুষকে অসৎ পথে নেওয়ায় কাজই হল শয়তানের প্রধান কাজ।

আর অন্যায় পথে চলা লোকদেরকে সত্যের পথে চলে মনে করে তাদের অনুসরণ করে। আল্লাহ তাআলা কুরআনে পাকে এ কথা সুস্পষ্ট ভাষায় তুলে ধরে বলেন, ‘শয়তানেরাই মানুষকে সৎপথ থেকে বিরত রাখে। আর মানুষ মনে করে, তারা সৎপথ প্রাপ্ত।’ (সুরা যুখরুফ : আয়াত ৩৭)এ সব লোকেরা মূলত আল্লাহ তাআলার স্মরণ সম্পর্কে থাকে উদাসিন। ইসলামের বিধি-বিধান পালনেও থাকে গাফেল। বিতাড়িত শয়তানের মূল মিশনই হলো মানুষকে আল্লাহর স্মরণ থেকে বিরত রাখা।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন...

যখনই কোনো মানুষ আল্লাহর স্মরণ থেকে দূরে সরে যাবে তখনই সে গোমরাহীর পথ অনুসরণ করবে।যে মানুষ গোমরাহ হয়ে যায়; সে শয়তানের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সর্বদা প্রস্তুত থাকে। এ সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা কুরআনে পাকে উল্লেখ করেন-

‘যে ব্যক্তি পরম দয়াময় আল্লাহর স্মরণে উদাসিন হয়; তিনি তার জন্য নিয়োজিত করেন এক শয়তান; অতঃপর সে হয় তার সহচর।’ (সুরা যুখরুফ : আয়াত ৩৬)

যারা নামাজ, রোজা , হজ, যাকাতসহ ইসলামের যাবতীয় বিধি-বিধান পালনে উদাসিন হয়; তাদেরকে আক্রমণ করে বসে শয়তান। অথবা ওই সব লোক যারা নিজেরাও নামাজ পড়ে না এবং অন্যকেও পড়তে দেয় না। এভাবে মানুষ শয়তানের সহচরে পরিণত হয়।আল্লাহ তাআলা মানুষকে নামাজ, রোজা হজ যাকাত তথা ইসলামের যাবতীয় বিধান পালনে উদাসিনতা পরিহারে সতর্ক বার্তা ঘোষণা করেছেন। আল্লাহ তাআলা বলেন-
‘ওয়াইল দোজখ ওই সব নামাজিদের জন্য যারা সময়মতো নামাজ পড়ায় উদাসিন।’ (সুরা মাউন : ৪ ও ৫)

আল্লাহর স্মরণ তথা জিকির-আজকার, হুকুম-আহকাম পালনে উদাসিন হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। কারণ যারাই আল্লাহর জিকিরে উদাসিন হবে; কুরআনের ঘোষণা অনুযায়ী আল্লাহ তাআলা তাদের জন্য শয়তান নিয়োজিত করবেন। আর তারাও হয়ে যাবে শয়তানের সহচর।শয়তানের সহচর থেকে মুক্ত হওয়ার উপায়
শয়তানের সহচর থেকে মুক্ত থাকার একমাত্র উপায় হলো বেশি বেশি আল্লাহ তাআলা জিকির করা। অলসতা না করে সময় মতো নামাজ আদায় করা। বেশি বেশি আল্লাহর রহমত কামনা করা।

> তাউজ তথা اَعُوْذُ بِاللهِ مِنَ الشَّيْطَانِ الرَّجِيْم (আউজু বিল্লাহি মিনাশ শায়ত্বানির রাজিম) পড়া।
> (لَا حَوْلَ وَ لَا قُوَّةَ اِلَّا بِاللهِ الْعَلِىِّ الْعَظِيْم) (লা হাওলা ওয়া লা কুয়্যাতা ইল্লা বিল্লাহিল আলিয়্যিল আজিম) বেশি বেশি পড়া।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে বেশি বেশি জিকির-আজকার, নামাজ, রোজা, হজ, যাকাতসহ যাবতীয় ইসলামি বিধি-বিধান পালনের মাধ্যমে শয়তানের যাবতীয় প্ররোচনা ও প্রতারণা থেকে মুক্ত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।



সর্বশেষ সংবাদ

এরদোগান তুরস্কে দুই বছরের জরুরি অবস্থা তুলে নিল

পূর্ণিমার সাথে বিচ্ছেদের ব্যপারে এবার মুখ খুললেন স্বামী ফাহাদ!

পগবা বিশ্বকাপ জয়ের পদকটা মাকে পরিয়ে দিলেন

ঘরের মেঝেতেই পচল স্ত্রীর লাশ, নির্বাক শুয়ে শুয়ে দেখলেন স্বামী!

মাঝ আকাশেই দুই প্রশিক্ষণ বিমানের সংঘর্ষ, নিহত ৪

পরীক্ষার ফল খারাপ করলে সন্তানকে বকাঝকা করবেন না: শেখ হাসিনা

ভাইয়ের মৃত্যুর বদলা নিতে খাবারে বিষ মেশাল ছাত্রী

যেখানে মজুত রয়েছে হাজার হাজার কোটি টন হীরে!

যে কয়টি কলেজে পাস করেনি একজনও

শাওমির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করল বাংলাদেশে

সৌদিতে আরও এক বাংলাদেশী হজ যাত্রীর মৃত্যু!

রাজধানী মিরপুরে বাড়ির নিচে গুপ্তধনের সন্ধান !

সমালোচিত সেই আসাদ পংপং ১৪ দিনের রিমান্ডে

এইচএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন ২০ থেকে ২৬ জুলাই 

‘নারী হয়ে জন্ম নেয়ায় জন্য নিজের প্রতিই নিজের ঘৃণা জন্মাচ্ছিল’

এবার ফ্রান্স কোচ দেশমের পদত্যাগ দাবি!

৬ ঘন্টার ব্যবধানে ২ ভাইয়ের লাশের ভার বইতে হলোঃ পলক

এ বছরও ছেলেদের চেয়ে এগিয়ে মেয়েরা

তিন শিক্ষিকার সঙ্গে যৌন হয়রানির দায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বরখাস্ত

সে পানিতে গোসল করলেই খাড়া হয়ে যায় মাথার চুল!





error: Content is protected !!
Copy to clipboard