বুধবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং। ২রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। বিকাল ৩:০৫








প্রচ্ছদ » অর্থ ও বাণিজ্য

সৌদি আরবে পান রপ্তানি নিষিদ্ধের আশঙ্কায় বাংলাদেশ

Loading...

বাংলাদেশ থেকে বিম্বের বিভিন্ন দেশে নানা ধরনের পন্র রপ্তানি করা হয়। এর মধ্যে অন্যতম পান রপ্তানি করে বৈদশিক মুদ্রা অর্জন করা । তবে সম্প্রতিবাংলাদেশের পানে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ‘স্যালমোনেলা’ পেয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) দেশগুলোতে পান রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। কয়েক বছর ধরে চেষ্টা করেও বিষয়টির সমাধান করা যায়নি। এবার নতুন করে বাংলাদেশের পান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে সৌদি আরব। সৌদি প্রশ্ন তুলেছে, বাংলাদেশের পানে ‘বালাইনাশক’ এর মাত্রা নিয়ে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এরই মধ্যে দূতাবাসের মাধ্যমে সৌদি আরব মন্ত্রণালয়কে সতর্ক করেছে। আগামীতে যেকোনো সময়ে যেকোনো একটি চালানে মাত্রার বেশি ক্ষতিকারক বালাইনাশক শনাক্ত হলে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে পান রপ্তানি বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন...
Loading...

দেশটির এই হুঁশিয়ারি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক গুরুত্বের সঙ্গে গ্রহণ করা হয়েছে। এমনকি সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে।

কৃষি, উৎপাদন ও বিপণনের সঙ্গে জড়িত সংস্থার একাধিক কর্মকর্তা বলেছেন, সৌদি আরব বাংলাদেশের পানের মান নিয়ে যেসব প্রশ্ন তুলেছে, তা স্বল্প সময়ে নির্ণয় করা এবং উৎপাদন পর্যায়ে তার ত্বরিত সমাধান করার সক্ষমতা আমাদের কম। নতুনভাবে পান চাষ করে পরবর্তীতে সৌদি আরবে পাঠানোর মতো সময় বা সুযোগও নেই। ফলে আশঙ্কা আরো ঘনীভূত হচ্ছে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, দেশটির পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর থেকে গত দুই মাসে বাংলাদেশের প্রস্তুতি বলতে শুধুমাত্র অতিরিক্ত সচিব পর্যায়ের একটি সভা হয়েছে। সেই সভায় সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে চারটি সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কিন্তু সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কোনো কাজ এখনো শুরুই করা যায়নি।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন কিছু সংস্থার পক্ষ থেকে সুপারিশ এসেছে মান নিশ্চিত করা পর্যন্ত সৌদি আরবে পান রপ্তানি সাময়িক বন্ধ রাখার। কিন্তু সেক্ষেত্রে ভারতসহ অন্য রপ্তানিকারক দেশের হাতে রপ্তানির কাজ চলে যাওয়ার আশঙ্কা আছে। কারণ, সৌদি আরবে পানের চাহিদা অনেক। বাংলাদেশ পান রপ্তানি অব্যাহত রাখতে না পারলে তারা নতুন কোনো দেশ কিংবা বর্তমানে পান রপ্তানি করা কোনো দেশ থেকে আমদানি বাড়িয়ে নিজেদের চাহিদা পূরণ করতে পারে।

 

এ ব্যাপারে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুর রৌফ  বলেন, বিষয়গুলো বাংলাদেশের শাকসবজি ও পান রপ্তানির জন্য উদ্বেগজনক। একই সঙ্গে দেশের ভাবমূর্তি রক্ষা ও অর্থনীতির জন্য ক্ষতিকর। তবে সবগুলো বিষয়েই আমরা সতর্ক এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।আসা করছি এমন সমস্যা পরবর্তীতে হবে না ।